Sim এর পূর্ণরূপ কি?

আমরা প্রত্যেকেই মোবাইল ফোন ব্যবহার করি।

মোবাইল ফোনের মধ্যে সিম ছাড়া আমরা কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারি না বা কারো সাথে কথার আদান প্রদান করতে পারি না। আমরা যদি একজন আরেকজনের সাথে যোগাযোগ করতে চাই। তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে হবে এবং সেই মোবাইল ফোনে একটি SIM থাকতে হবে। যার দ্বারা আমরা একজন আরেকজনের সাথে যোগাযোগ করতে পারব।

আজকে আমরা আপনাদের সামনে সিম নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি। আপনারা হয়তো অনেকেই মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন এবং মোবাইল ফোনের মধ্যে sim ব্যবহার করেন। যে সিমের মাধ্যমে আপনি একজন আরেকজনের সাথে যোগাযোগ করেন আপনি।

যদি যেকোনো একটি জায়গায় থাকেন এবং সেই জায়গা থেকে একজন ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করতে চান। তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটি মোবাইল ব্যবহার করতে হবে এবং সেই মোবাইলের মধ্যে একটি সচল SIM থাকতে হবে। যেটার সাহায্যে আপনি একজন আরেকজনের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। এছাড়া আপনি কোনভাবেই একজন আরেকজনের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন না।

অথবা তথ্যের আদান-প্রদান করতে পারবেন না। আজকে আমরা আপনাদেরকে দেখাবো SIM এর পূর্ণরূপ কি। sim কিভাবে কাজ করে। সিম কেন আমাদের মোবাইল ফোনে চালু রাখা রয়েছে। সিম যদি না থাকতো তাহলে আমরা কিভাবে যোগাযোগ করতাম। এ সকল বিস্তারিত বিষয়গুলো নিয়ে আজকে আমরা একটি প্রবন্ধ সাজিয়েছি। যে প্রবন্ধটি প্রত্যেকের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে।

 

Sim এর পূর্ণরূপ:- Subscriber Identification Module

 

সিম এর পূর্ণরূপ কি?

সিম মূলত একটি সমন্বিত বর্তনী। যা আপনাকে নিরাপদে আন্তর্জাতিক মোবাইল গ্রাহকের পরিচয় প্রদান করবে। আন্তর্জাতিক মোবাইল গ্রাহকের পরিচয় সংরক্ষণ করা sim এর কাজ। এটি একটি পোর্টেবল মেমরিচ। যা আপনাকে সমগ্র বিশ্বের সাথে পরিচিত করতে সক্ষম করবে। আপনি একটি মোবাইল ফোনে SIM ব্যবহারের মাধ্যমে আপনার ঘরে বসে বিশ্বের যে কোন প্রান্তে যে কোন ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

সিমটি সাধারণত জিএসএম নেটওয়ার্কের উপর পরিচালিত হয়। জিএসএম নেটওয়ার্কের উপর মোবাইল ফোনগুলোতে এই sim ব্যবহার হয়। SIM একটি স্মার্ট কার্ড টেলিফোন গ্রাহকদের জন্য ডেটা সঞ্চয় করে থাকে। SIM যখন আবিষ্কার করা হয় তখন একটি সিম ৩২ কেবি থেকে ১২৮কেবি পর্যন্ত ডেটা সংরক্ষণ করতে পারে।

বর্তমানে সিমের ডেটা সংরক্ষণের অবস্থান এই দুইটি পর্যায়ে রয়েছে। আপনি যখন আপনার মোবাইল ফোনে একটি sim ব্যবহার করে।ন তখন আপনার সেই সিমে কিছু ডেটা থাকে। যেমন: আপনার মোবাইল ফোনে সেভ কৃত যতগুলো মোবাইল নম্বর রয়েছে। অর্থাৎ কন্টাক্ট নম্বর রয়েছে সে সকল কন্টাক্ট নম্বর গুলো সরাসরি আপনি আপনার সিমে সেভ করতে পারবেন।

সেই সাথে আপনার সিমে যে সকল এসএমএস গুলো আসে। সেই এসএমএসগুলো সরাসরি আপনার সিমে সেভ করা যেতে পারে। এটি হচ্ছে সিমের মূল সক্ষমতা। সেই সাথে আপনি যদি কারো সাথে যোগাযোগ করতে চান। তাহলে আপনার সিমে অবশ্যই নেটওয়ার্ক কানেকশন থাকতে হবে। আপনি যদি নেটওয়ার্ক কানেকশন এর বাহিরে অবস্থান করেন। তাহলে কোন ভাবেই আপনি এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় অন্য কোন ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন না।